রবিবার, ৫ ভাদ্র, ১৪২৪ | ২০ আগস্ট, ২০১৭


লেখালিখি-তে আপনাকে স্বাগতম । প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত ১২৪৬ দিনে আমাদের এখানে জমা হয়েছে ১৯৮ টি লেখা । মূলপাতায় সজ্জিত হয় সাম্প্রতিকতম লেখা, পাতা উল্টোতে উল্টোতে আপনি পৌঁছে যেতে পারেন সর্বপ্রথম প্রকাশ লেখাটিতে । এখানে নিয়মিত ও অনিয়মিত লেখকগণ তাদের সাহিত্যচর্চা চালিয়ে যাচ্ছেন, পোস্ট করছেন তাদের রচিত গল্প, কবিতা, নাটক, উপন্যাসিকা ও বিবিধ লেখা । আপনিও হতে পারেন তাদের একজন । আপনার মনের কোনে লুকিয়ে থাকা লেখার সাধটি মিটিয়ে নিসংকোচে লেখা পোস্ট করুন । ভালো আর খারাপ, নিজের কাছে যাই মনে হোক না কেন, আপনি আপনার মন খুলে যে লেখাটি লিখবেন তা ভালো লাগবো হয়তো আরও একজনের । আমরা বিশ্বাস করি, একজন মানুষ লিখে থাকে নিজের জন্য; কিন্তু সেই লেখাটি আরও কয়েকজন পড়তে পারলে মানুষ থেকে মানুষে রচিত হয় এক অন্যরকম সংযোগ – মন থেকে মনের এই যোগাযোগই সাহিত্যের মূল সুর । মন খুলে লিখুন আর মন ভরে পড়ুন । বাংলা সাহিত্যচর্চার এই আয়োজন আপনার পদচারণায় মুখর হয়ে উঠুক…

খোকন ধরেছে বায়না রে(ছড়া)

খোকন ধরেছে বায়না রে । লাগবে জাদুর আয়না রে । জাদুর আয়না না পেলে খোকন কিছু খায়না রে ।    

ঝুক্ ঝুক্ ঝুক্ রেলগাড়ি

ঝুক্ ঝুক্ ঝুক্ রেলগাড়ি চলছে সারাদিন । সেই তালেতে খোকন নাচে তা ধিন্-ধিন্-ধিন্ ।

বাণী

যতক্ষণ পথের ধূলা দুর্ভাগ্যবশত পথেই পড়িয়া রয় ততক্ষণ মানবচরণ মাড়ায় তারে বড়ই অবহেলায় । যখন পথের ধূলা উড়িয়া গিয়া মন্দিরে ঠাই পায় তখন মানব তারে শিরে মাখিয়া শত চুম্বন খায় ।

সান্ত্বনা

বারোটা বাজে ঘুমোতে গিয়েছিলাম রাত জাগবো না বলে, মিনিট পেরিয়ে ঘণ্টা চলে যায় ঘুম আসে না চোখে; বিছানা ছেড়ে জানালা খুলে তাকিয়ে দেখি আকাশ, ভারি হয়ে ওঠে হটাৎ করেই দখিনা শীতল বাতাশ; মেঘটা সরে উকি দিয়ে চাঁদ মুচকি মুচকি হাসে, জানান দেয় আঁধারে ঘেরা সে এখনো আছে পাশে; কথা বলি জলের ছোয়ায় যদিও কেউ শোনে […]

মুক্তি

বিবস্ত্র হয়ে পড়ে থাকে প্রান্তিকতা, নিঃসঙ্গতায় বেঁচে থাকার আনন্দ আজ তীব্র, নষ্ট হবার পথে যেতে যেতেও ফিরে আসে একলা পথিক, ঘুমিয়ে দুঃস্বপ্ন দেখার চেয়ে তো নির্ঘুমতাই বেশ! সেকেলে ঝুড়িতে আটসাঁট হয়ে পড়ে আছে কিছু মরচে পড়া কথা, তারা আজ কদাচিৎ-ই ভাষা । ”অনুভব তবে আরও ব্যথা হোক, বৃথা চুক্তিপত্রে জড়িয়ে যাক দ্বৈত হৃদয়”- এসব বাক্য আজ […]

বাঁধনহারা

বাঁধনে বেঁধেছ আমায় তবু আমি বাঁধনহারা, বেসেছ ভাল তবুও ভাল আছি তোমায় ছাড়া । একা এই ক্ষণগুলোতে ভাল হল তুমি পাশে নাই, যদিও বা আকাশ কালো তাই দেখে হৃদয় রাঙ্গাই । ভোরগুলো ডাকে না তবু কেটে যায় দিব্যি বেলা, যদিও বা ফুল ঝরে যায় তাই দিয়ে গাঁথি যে মালা ।

স্বদেশ

ও দেশ তোমায় আমি কত ভালবাসি, ফুল-ফল-পাতা আছে মিশে মোর হাত । খালি গায়ে ধুলাবালি মেখে আমি হাঁসি, হাঁসি মুখে মিশে যাব এ মাটির সাথ । মাগো তুমি তোমা হাতে খাওয়ালে ভাত, তোমারই হাঁসি মুখ দেখে আমি হাঁসি । তোমার মুখের ভাষা সারা বিশ্বমাত, শুনে আমি চোখেমুখে সেই গর্বে ভাসি । প্রবাসে কাটিয়ে বেলা; সেই সূর্যোদয়, আর সে না […]

স্বপ্ন সম

ঘুড়িটা আকাশেই উড়ুক! ঘুড়ি উড়লেই তুমিও উড়বে- অশ্রুশিক্ত চোখ স্বপ্ন খেলুক, নীড়ে আসুক যত বেদনার নীল আবির । জমাট বেধেঁই নতুনত্বে পথ চলুক- জমকালো আলোকে ভূবন দেখুক! ঘুড়িটা তোমার আকাশেই উড়ুক! গোধুলির সাঝে ক্লান্ত হয়ে নব স্বপ্ন! প্রজাপতির বাহারি রঙ্গে পেখম মেলুক । ঘুড়িটা উড়ুক -স্বপ্ন সমস্ত আকাশ জুড়ে ।  ।

আহ্বান

কিসের এতো গৌরব তোমার কিসে তুমি গাও গান এ ভব ছাইড়া যাবে সুতোয় পড়িলে টান । আসিয়া ছিলে একা তুমি যাওয়ায় একা করিবে নিজেকে দান সত্য পথে আছ কী তুমি গাও সত্যের মহাজয় গান । তোমার মতো যারা এসেছিল ভবে সবাই টানিয়াছে দাড় টান ঐ সাগরের মাঝে দিও না ছেড়ে তোমার বৈঠা খান । মুখে আল্লাহ জপো তুমি […]