বুধবার, ১০ জৈষ্ঠ্য, ১৪২৪ | ২৪ মে, ২০১৭


লেখালিখি-তে আপনাকে স্বাগতম । প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত ১১৫৮ দিনে আমাদের এখানে জমা হয়েছে ১৯১ টি লেখা । মূলপাতায় সজ্জিত হয় সাম্প্রতিকতম লেখা, পাতা উল্টোতে উল্টোতে আপনি পৌঁছে যেতে পারেন সর্বপ্রথম প্রকাশ লেখাটিতে । এখানে নিয়মিত ও অনিয়মিত লেখকগণ তাদের সাহিত্যচর্চা চালিয়ে যাচ্ছেন, পোস্ট করছেন তাদের রচিত গল্প, কবিতা, নাটক, উপন্যাসিকা ও বিবিধ লেখা । আপনিও হতে পারেন তাদের একজন । আপনার মনের কোনে লুকিয়ে থাকা লেখার সাধটি মিটিয়ে নিসংকোচে লেখা পোস্ট করুন । ভালো আর খারাপ, নিজের কাছে যাই মনে হোক না কেন, আপনি আপনার মন খুলে যে লেখাটি লিখবেন তা ভালো লাগবো হয়তো আরও একজনের । আমরা বিশ্বাস করি, একজন মানুষ লিখে থাকে নিজের জন্য; কিন্তু সেই লেখাটি আরও কয়েকজন পড়তে পারলে মানুষ থেকে মানুষে রচিত হয় এক অন্যরকম সংযোগ – মন থেকে মনের এই যোগাযোগই সাহিত্যের মূল সুর । মন খুলে লিখুন আর মন ভরে পড়ুন । বাংলা সাহিত্যচর্চার এই আয়োজন আপনার পদচারণায় মুখর হয়ে উঠুক…

স্বদেশ

ও দেশ তোমায় আমি কত ভালবাসি, ফুল-ফল-পাতা আছে মিশে মোর হাত । খালি গায়ে ধুলাবালি মেখে আমি হাঁসি, হাঁসি মুখে মিশে যাব এ মাটির সাথ । মাগো তুমি তোমা হাতে খাওয়ালে ভাত, তোমারই হাঁসি মুখ দেখে আমি হাঁসি । তোমার মুখের ভাষা সারা বিশ্বমাত, শুনে আমি চোখেমুখে সেই গর্বে ভাসি । প্রবাসে কাটিয়ে বেলা; সেই সূর্যোদয়, আর সে না […]

স্বপ্ন সম

ঘুড়িটা আকাশেই উড়ুক! ঘুড়ি উড়লেই তুমিও উড়বে- অশ্রুশিক্ত চোখ স্বপ্ন খেলুক, নীড়ে আসুক যত বেদনার নীল আবির । জমাট বেধেঁই নতুনত্বে পথ চলুক- জমকালো আলোকে ভূবন দেখুক! ঘুড়িটা তোমার আকাশেই উড়ুক! গোধুলির সাঝে ক্লান্ত হয়ে নব স্বপ্ন! প্রজাপতির বাহারি রঙ্গে পেখম মেলুক । ঘুড়িটা উড়ুক -স্বপ্ন সমস্ত আকাশ জুড়ে ।  ।

আহ্বান

কিসের এতো গৌরব তোমার কিসে তুমি গাও গান এ ভব ছাইড়া যাবে সুতোয় পড়িলে টান । আসিয়া ছিলে একা তুমি যাওয়ায় একা করিবে নিজেকে দান সত্য পথে আছ কী তুমি গাও সত্যের মহাজয় গান । তোমার মতো যারা এসেছিল ভবে সবাই টানিয়াছে দাড় টান ঐ সাগরের মাঝে দিও না ছেড়ে তোমার বৈঠা খান । মুখে আল্লাহ জপো তুমি […]

ইচ্ছে ঘুড়ি

হাওয়ায় হাওয়ায় উড়িয়ে দিলাম মনের শত ইচ্ছে ঘুড়ি| সাত রঙের শত ঘুড়ি| ছেড়া সুতাই ভাসছে ঘুড়ি| নীল আকাশে হাওয়ার ভরে, খোঁজছে ঘুড়ি শেষ ঠিকানা| হাওয়ার ভরে ভাসছে ঘুড়ি, মনের শত ইচ্ছে ঘুড়ি| পাইনি তবু শেষ ঠিকান|

পথ

সে তো ছুটেই চলছে; আকাঁ-বাকাঁ ঐ ধূলিমাখা পথে| কখনো হাসি কখনো কান্নার; ব্যাস্ত জীবনের ছুটে চলা এ পথে| শত মায়া শত ভালবাসা মিশে থাকা ঐ পথে| ছুটেছি আমি স্বপ্ন পূরণের খুজেঁ| ছুটে ছুটে চলা ঐ আকাঁ-বাকাঁ পথের সীমানা কবু নাহি খুজে আমি পায়| চলছি ছুটে স্বপ্নের খুজে|

অলস দুপুর

অলস আমি, সময় ছুটছে আপন গতিতে । বসে আছি, বসে নেই সময় । মিনিট, ঘন্টা, দিন মাস চলছে । একই রেখায় চলছে….

শীতের সকাল

শীতের সকালের মিষ্টি রোদ বড় ভালো লাগে । কেউ বা পোহায় রাস্তার দ্বারে বসে । কেউ বা পোহায় ভিঠে জমিতে বসে । পাঁচ-ছয় জনের গোল আসরে অনেক কথাই জমে ।

অনুকাব্য-৩

যেখানে শূন্যতা ভরপুর সেখানেই আমি ছুটে চলছি । এ তো মিথ্যে আশায় ছুটে চলা । ভাবনার বন্দরে শুধুই অপূর্ণতা । ঝাঁকে ঝাঁকে এসে ভির জমায় ।

অনুকাব্য-২

ব্যথিত আত্মার; জ্যান্ত নীল বেদনা গুলো হার মানে । মরে মরে বেঁচে যাওয়া মানুষ গুলোর কাছে ।

অনুকাব্য-১

রোদেলা দুপুরে, এলো মেলো বাতাসে । উড়ছে আমার ইচ্ছে ঘুড়ি । চেয়ে দেখ আকাশ পানে ।