প্রেয়সী

খোলা ছাদের এক কোনে দাঁড়িয়ে পুরো ছাদটাকে সাক্ষি করে যে মানুষটা উম্মুক্ত আকাশের পানে তাকিয়ে জোৎস্নার আলোয় ভিজতো, সেই মানুষটা হয়তো আজ চার দেয়ালের অন্ধকারাচ্ছন্নতা থেকে বের হয়ে বারান্দা পর্যন্ত এসে দাড়াতে পারে না,
রাস্তার পাশ ধরে যাওয়া নদীর জলে ঢেউ খাওয়া চাঁদটা যখন ঢিঙ্গি নৌকোয় এসে দোল খেতো সেই সময়টা খালি পায়ে নদীর ধারে হাটতে আসা মানুষটার আজ খালি পায়ে হিমুর বেশে হাটা হয় না অনির্দিষ্ট সীমানায়,
মাঝ রাতে গুন গুন করে গান করা পুর্নিমার গায়ে হাত রেখে অজানা এক মোহতায় নিজেকে হারিয়ে ফেলা মানুষটা এখন আর সময় পায় না পুর্নিমার সাথে সাক্ষাত করার,
ফিসফিস করে গল্প করা ঝিঝি পোকার নিস্তব্দ সন্ধিক্ষনে অদ্ভুত এক শিহরনে চাঁদের আলোর মুগদ্ধতার নিজেকে খুজতে না চাওয়া মানুষটা এখন আর নিজেকে হারিয়ে ফেলার মত সময় করে উঠতে পারে না,
এই একটু বাহিরে এসে দেখো আজকের চাঁদটা পৃথিবীর সব কিছুকে হার মানাবে শুধু তোমাকে ছাড়া, আমি জানি তোমার কাছে হয়তো তার পরাজয়…..কথা টুকু শুনের একটা ভুবন ভুলানো মিস্টি হাসিতে তৃপ্তি খুজে পাওয়া মানুষটাকে আজ কেউ এসে বলে না এই একটু বাহিরে আসবে, আজকের চাঁদটা না অনেক সুন্দর,
সময় বদলে যায়, বদলে যায় নিয়ম তার সাথে সাথে বদলে যায় চেনা মানুষ গুলো,
……বদলায়নী সেই চাঁদ, বদলায় নি তার জোৎস্না, বদলায়নীতার সুন্দর্য……..শুধু বদলে গেছে ভালো লাগার মহুর্ত আর তুমি নামের প্রিয় মানুষটা…!!

মন্তব্য করুন