নষ্টালজিয়া

যদি ভুল না হই তাহলে আমার ধারণা আমাদের জেনারেশনের সবার লেখার শুরু হয়েছে তিন টাকা দামের ‪ইকোনো‬ ডিএক্স কলম দিয়ে । কয়েক কালারের কলম, উপরে কালো একটা ক্যাপ, ক্যাপের সাইডে একটা চিকন ডান্ডা । ঐটা কামড়াইয়া ফার্ষ্টের দিন ই বাকা কইরা ফেলতাম ।

এই ইকোনো ডিএক্স কলম উলটা করে কিছুক্ষণ রাখলেই কালি পড়ত । এই কালিতে স্কুলের শার্ট প্যান্টের পকেট ভরায় নাই এমন পোলাপাইন মনে হয় না খুব একটা পাওয়া যাবে । তবে কিছু কিছু কলমের কালিতে আবার সেন্ট মারা থাকত । ঐগুলা নরমালি‬ পাওয়া যাইত না । মেলা টেলা হইলে পাওয়া যাইত ।

ফ্রেন্ডদের মধ্যে যাদের বাবা ডাক্তার ছিল তাদের কাছ থেকে ‪ওষুধ‬ কোম্পানির সিল ওয়ালা তিন চার শিষ ওয়ালা কলম পেতাম । একেক ক্লিকে একেক কালারের শিষ বের হত । ওইগুলা নরমালি স্পেশাল‬ কিছু লেখার জন্য রাইখা দিতাম । আর পরীক্ষার সময় ইউজ করতাম রেড লীফ । আট টাকা দাম ছিল মে বি । দুই টাকা ছিল শিষের দাম ।

কিছু লোকাল পেনসিল আর রাবার পাওয়া যাইত । এর মধ্যে বিভিন্ন কালারের কিংবা ফ্লেভারের ‪রাবার‬ পাওয়া যাইত । ঐগুলা অনেক বাসার বাচ্চা কাচ্ছা খাইয়া ও ফেলত । তবে পেন্সিলের পিছনে একটা ডিফল্ট রাবার একটা পাতল টিনের‬ খোপে থাকত । ঐটা কামড়াইতে গিয়া কতবার যে ঠোট কাটছি আল্লাহ ই জানে ।

তয় যুগ এখন বদলাইছেন । এখন এই ব্র্যান্ডগুলার একটা পাওয়া যায় না । এখন চলে ম্যাটাডোর, সেলো গ্রিপ এইগুলা । তার উপ্রে এখন তো ‪টাইপিং‬ এর যুগ । এখন আর চিঠি লিখি না কাউকে, লিখি মেইল । বেশী দরকার হলে ফোন । সিভি টিভি সব টাইপ করে সেন্ড করা লাগে । লেখার নেসেসিটি বলতে গেলে এখন নাই ই ।

এখনের যুগ ডিজিটাল, আমরা ডিজিটাল, কলম পেনসিল নিয়া ভাবার টাইম নাই । এরপরে ও পোলাপাইন‬ আড্ডায় বসলে ঐগুলা নিয়া আলোচনা হয় । মোবাইল কিংবা ‪কম্পিউটারে‬ গেইম এইগুলা মেইন ষ্ট্রীম থাকলে ও ক্লাসের ফাঁকে ফাঁকে অফ টাইমে স্যারদের টেবিলের উপরে কলম দিয়ে পেন ফাইট খেলার এক্সপিরিয়েন্স এখনো অনেক আড্ডার হট টপিক ।

আমাদের কিন্ডার গার্টেন স্কুলটা ছিল ‪কম্বাইন্ড‬ । ঐখানে এই কলম খেলা খেলতে গিয়া স্যারের মাইর খাইয়া মেয়েদের সামনে সারা ক্লাস কান ধইরা দাড়াইয়া থাইকা বহু টাইম পার করছি । তখন যে কি ‪প্রেষ্টিজে‬ লাগত । তবু পরের দিন সব নরমাল । আবার শুরু হত খেলা ।

সত্যি বলতে আমাদের সময় এইসব সস্তা খেলা খেইলাই পোলাপাইন মানুষ হইত । আর এখন মোবাইল আর কম্পিউটারে দামী দামী গেইম খেইলা পোলাপাইন ‪রোবট‬ হইতাছে । জানি যুগের ট্রেন্ড এগুলা । তবু ও মাইক্রোসফট ওয়া্র্ডের হাজারটা ফন্টের চেয়ে আমার ইকোনো ডিএক্স এর হিজিবিজি ফন্ট টাই এখনো বেশী সুন্দর ।

অ্যাট লিষ্ট ঐ কালির অক্ষরগুলোতে জীবনের অনেক স্বপ্ন কিংবা কল্পনা ছিল, যেটা টাইপের অক্ষরগুলাতে এখনো পাইনি । এবং কখনো পাবো ও না । ‪হাজারো‬ রঙের কলম আর হাজারো ফন্টের ভীড়ে এখনো ইকোনো ডিএক্সে লেখা স্বপ্নগুলোই ইউনিক ।

মন্তব্য করুন